rash mela at dublar char, sundarban

প্রতি বছর কার্তিক মাসের পূর্ণিমা তিথিতে দুবলার চরে অন্যতম বড় উৎসব রাসমেলা অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্বের সবচেয়ে বড় শ্বাসমূলীয় বন(সুন্দরবন) ঘেঁষে বঙ্গোপসাগরের কোলে জেগে ওঠা ছোট্ট একটি দ্বীপ দুবলার চর। সাগরের কোলঘেঁষা এ চরের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে কুঙ্গা ও মরা পশুর নদী।

১৯২৩ সালে হরিচাঁদ ঠাকুরের বনবাসী ভক্ত হরিভজন এ মেলা শুরু করেন। আবার কেউ কেউ মনে করেন, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের দেবতা শ্রীকৃষ্ণ শত বছর আগে কার্তিকের পূর্ণিমা রাতে পাপমোচন ও পুণ্যলাভের আশায় গঙ্গাস্নানের জন্য স্বপ্নে আদেশ পান। তখন থেকেই এ মেলার শুরু। আবার অনেকে মনে করেন, শ্রীকৃষ্ণ বনবাসী গোপীদের সঙ্গে রাসলীলা করেছিলেন এ কার্তিকের পূর্ণিমা রাতে। পূর্ণিমার জোয়ারে পানিতে তাদের পাপ মোচন হয়ে মনস্কামনা পূর্ণ হবে এই বিশ্বাস নিয়ে অসংখ্য সনাতন ধর্মাবলম্বী অংশ নেন এ মেলায়।

ক্রমে ক্রমে এ মেলা্ এখন হয়ে উঠিছে সর্বজনীন উৎসব। সনাতন ধর্মালম্বীদের পাশাপাশি উৎসব দেখতে আসেন অসংখ্য দেশি-বিদেশি পর্যটক। এ উপলক্ষে এখানে গ্রামীণ মেলাও বসে সেখানে।

মেলার প্রথম দিনে সূর্য ওঠার আগেই দুবলার চরের আলোর কোল সমুদ্র সৈকতে প্রদীপ জ্বালিয়ে প্রার্থনায় বসেন পুণ্যার্থীরা। আর সন্ধ্যার দিকে ওড়ানো হয় ফানুস। উৎসবের সময় কুটির শিল্পের মেলাসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও অনুষ্ঠিত হয় সেখানে।

প্রতিবছর বন বিভাগ ভক্ত ও দর্শনার্থীদের জন্য মেলায় যাওয়ার জন্য কিছু নির্দিষ্ট পথ নির্ধারণ করে থাকে। অনুমতি ব্যতীত কাউকে অন্য কোনও রুটে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয় না।

পথগুলি হল:
১. ধানমারি / চাঁদপাই স্টেশন থেকে পশুর নদী এবং ট্রিকন দ্বীপ হয়ে দুবলার চর।
২. সুগতি স্টেশন ও কোচিখালী হয়ে বগি স্টেশন দুবলার চর।
৩. শরণখোলা স্টেশন শোলারচর হয়ে দুবলার চরে ।
৪. হ্যাংসরাজ নদীর উপর দিয়ে বুড়িগোয়ালিনী থেকে দুবলার চরে।
৫. মাইদারগাং এবং দোবেকি হয়ে কৈখালী স্টেশন থেকে দুবলার চর।
৬. কাঁচা দোবেকি হয়ে অর্পঙ্গাসিয়া থেকে দুবলার চর, খায়শানা নদী হয়ে কয়রা থেকে দুবলার চর।
৭.মারজাত ও নালিয়ান স্টেশন থেকে দুবলার চর হয়ে মারজাত হয়ে।

এছাড়াও বন বিভাগ রাশ মেলায় অংশগ্রহনকারী ও দর্শনার্থীদের জন্য আরও কিছু বিধি বিধান জারি করে থাকে।

এবছর নভেম্বর এর ১১-১৩ তারিখে রাসমেলা অনুষ্ঠিত হবে।

লোকেশনটি গুগল ম্যাপ এ দেখতে এখানে ক্লিক করুন

Similar Posts

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।